শিরোনাম :
ঘাতকদের নির্মম আঘাতে নিহত বায়োবৃদ্ধ আসাদ শেখের খুনিদের দাবিতে নিহতের পরিবার ও গ্রামবাসীর মানববন্ধন সেনবাগে কাবিলপুর একতা সমাজ সংঘের উদ্দ্যোগে ইফতার পার্টি ও ঈদ বস্র উপহার বিতরণ সেনবাগে সৈয়দ হারুন ফাউন্ডেশনের পক্ষ হতে ৪০০ পরিবারকে ঈদ উপহার সামগ্রী বিতরণ সেনবাগে সেলিম উদ্দিন কাজল এর উদ্দ্যোগে দেশবাসীর জন্য দোয়াও মেজবানী অনুষ্ঠিত সেনবাগে কাবিলমিয়া ফাউন্ডেশনের উদ্দ্যোগে ঈদ উপহার সামগ্রী বিতরণ সেনবাগে অসহায় গরীবের মাঝে প্যানেল চেয়ারম্যান স্বপনের ঈদ উপহার সামগ্রী বিতরণ ফরিদপুর জেলা পুলিশের প্রেস ব্রিফিং অনুষ্ঠিত মীনার স্বপ্নপূরণের সহযাত্রী ফরিদপুর জেলা প্রশাসন বৃহত্তর গোয়ালচামট বাসীর পক্ষ থেকে শান্তিনিবাসে ইফতার বিতরণ সেনবাগে পৌরমেয়র প্রার্থী সাইফুল ইসলাম বাবুর করোনাকালীন খাদ্য সামগ্রী বিতরণ
নোটিশ :
Wellcome to our website...

দক্ষিন কেরানীগঞ্জের ওসি ও ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে মামলা

প্রথমসংবাদ ডেক্স : / ১৭৫ বার
আপডেটের সময় : বৃহস্পতিবার, ২৯ অক্টোবর, ২০২০

নিজস্ব প্রতিবেদক: ঢাকার দক্ষিন কেরানীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শাহ জামান ও শুভাড্ডা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ইকবালসহ ৯জনের নাম উল্লেখ করে (বৃহস্পতিবার) আদালতে মামলা দায়ের করেছেন এক জেনারেটর ব্যবসায়ী। এর আগে প্রতারনার দায়ে অভিযুক্ত ৬জনের নামেও মামলা দায়ের করে ভুক্তভোগী ব্যবসায়ী আকতার হোসেন।

মামলার সুত্রে জানা গেছে, মেসার্স আফরোজা জেনারেটর সার্ভিস এর মালিক আক্তার হোসেনের সাথে ব্যবসায়িক প্রতারনা করায় শরীফ আহম্মেদ সুমন, সাহাবুদ্দিন আহম্মেদ, সুলতান, বাবু ও সাজু চৌধুরীর নামে চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে একটি মামলা দায়ের করা হয়। মামলা নং ৪৩৮/২০২০। মামলা টি বর্তমানে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন পিবিআই তদন্ত করছে।

মামলাটি দায়েরের পর থেকে আসামীরা ব্যবসায়ী আকতার হোসেনকে মামলা উঠিয়ে নিতে বিভিন্ন ভাবে হুমকি দিতে থাকে। এবিষয়ে ৩০ সেপ্টেম্বর আকতার হোসেন দক্ষিন কেরানীগঞ্জে একটি সাধারন ডায়েরি করেন। ডায়েরি নং- ১৩৩৪।

পরবর্তিতে কেরানীগঞ্জের শুভাড্ডা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ইকবাল ৩অক্টোবর দুপুরে আকতারের ভাই দেলোয়ারকে হত্যার উদ্দেশ্যে সন্ত্রাসী নিয়ে কেরানীগঞ্জের কালীগঞ্জ নুরু মার্কেটের ৭তলায় অপহরন করে নিয়ে মারধর করে এবং নগদ ৩০হাজার টাকা নিয়ে যায়। এসময় দেলোয়ারের চিৎকারে আশপাশের লোকজন ও তার আত্মীয় স্বজন আসলে সন্ত্রাসীরা দেলোয়ারকে মৃত ভেবে পালিয়ে যায়।

এবিষয়ে ৭অক্টোবর বিকেলে ব্যবসায়ী আকতার হোসেন দক্ষিন কেরানীগঞ্জ থানায় মামলা করতে গেলে তাকে থানার অফিসার ইনচার্জ মামলা না নিয়ে উল্টো অপরাধীদের পক্ষ নিয়ে আকতারকে থানায় আটক করে রেখে লাঞ্চিত করে। বিষয়টি জানতে পেয়ে আকতারের স্বজনরা ঢাকা জেলা পুলিশ সুপারের শরণাপন্ন হলে আকতারকে থানা থেকে ছেড়ে দেয়া হয়। এবং এ বিষয়ে বারবারি করতে নিষেধ করা হয়।

এদিকে এ ঘটনার পর থেকেই আকতার ও তার পুর্বের মামলার সাক্ষীদের বিভিন্ন ধরনের ক্ষতি সাধনের চেষ্টায় লিপ্ত থাকে।

এবিষয়ে থানায় মামলা না নেয়ায় ব্যবসায়ী আকতার হোসেন বৃহস্পতিবার চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে গতকাল পুরো ঘটনা উল্লেখ করে দক্ষিন কেরানীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ শাহ জামান, শুভাড্ডা ইউনিয়নের ইকবাল চেয়ারম্যান, শরীফ আহম্মেদ সুমন, সাহাবুদ্দিন আহম্মেদ, সুলতান, বাবু, সাজু চৌধুরী, খায়রুল, হান্নান নাম উল্লেখ করে ও ৭/৮জনকে অজ্ঞাতনামা ব্যক্তিকে আসামী করে মামলা দায়ের করেন। মামলা নং ৬৮২, তারিখ ২৯/১০/২০২০।

এবিষয়ে ভুক্তভোগী আকতার হোসেন জানান, এলাকায় ব্যবসা করতে হলে ইকবাল চেয়ারম্যানকে ১কোটি টাকা দিয়ে ব্যবসা করতে হবে। এতে তিনি রাজি না হওয়ায় তার ও তার পরিবারের উপর ক্ষিপ্ত হয় চেয়ারম্যান ও তার লোকজন। থানা পুলিশও ইকবাল চেয়ারম্যানকে সেল্টার দিচ্ছে। এবিষয়ে তিনি আদালতে যে মামলাটি দায়ের করেছেন তা পুলিশকে তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন বলেও জানান তিনি।


এ জাতীয় আরো সংবাদ