শিরোনাম :
সেনবাগে কাবিলপুর একতা সমাজ সংঘের উদ্দ্যোগে ইফতার পার্টি ও ঈদ বস্র উপহার বিতরণ সেনবাগে সৈয়দ হারুন ফাউন্ডেশনের পক্ষ হতে ৪০০ পরিবারকে ঈদ উপহার সামগ্রী বিতরণ সেনবাগে সেলিম উদ্দিন কাজল এর উদ্দ্যোগে দেশবাসীর জন্য দোয়াও মেজবানী অনুষ্ঠিত সেনবাগে কাবিলমিয়া ফাউন্ডেশনের উদ্দ্যোগে ঈদ উপহার সামগ্রী বিতরণ সেনবাগে অসহায় গরীবের মাঝে প্যানেল চেয়ারম্যান স্বপনের ঈদ উপহার সামগ্রী বিতরণ ফরিদপুর জেলা পুলিশের প্রেস ব্রিফিং অনুষ্ঠিত মীনার স্বপ্নপূরণের সহযাত্রী ফরিদপুর জেলা প্রশাসন বৃহত্তর গোয়ালচামট বাসীর পক্ষ থেকে শান্তিনিবাসে ইফতার বিতরণ সেনবাগে পৌরমেয়র প্রার্থী সাইফুল ইসলাম বাবুর করোনাকালীন খাদ্য সামগ্রী বিতরণ সচেতনতা মুলক স্টিকার ও মাস্ক বিতরণ করলো জনপ্রিয় সেচ্ছাসেবী সংঘঠন ত্রিশাল হেল্পলাইন
নোটিশ :
Wellcome to our website...

পিতার পরিকল্পনায় ছেলেকে পুড়িয়ে হত্যা করে মা-বোন, পিতা গ্রেপ্তার

প্রথমসংবাদ ডেক্স : / ১৫৮ বার
আপডেটের সময় : বুধবার, ৪ নভেম্বর, ২০২০

গিয়াস উদ্দিন রনি, নোয়াখালীঃ নোয়াখালীর সোনাইমুড়ীতে মঈন উদ্দিন সাদ্দামকে (২৭) প্রকাশ্যে গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুনে পুড়িয়ে হত্যা মামলার অন্যতম আসামি মূল পরিকল্পনাকারী নিহতের পিতা মোস্তফা চৌধুরী (৫৫) কে গ্রেফতার করেছে সিআইডি পুলিশ।

গ্রেফতারকৃত, উপজেলার কাশিপুর মধ্য পাড়ার মৃত হাজী রঙ্গু মিয়ার ছেলে এবং নিহত সাদ্দামের পিতা।

বুধবার (৪ নভেম্বর) ভোর ৫টায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ক্রিমিনাল ইনভেস্টিগেশন ডিপার্টমেন্ট (সিআইডি) নোয়াখালী জেলা তদন্তকারী কর্মকর্তা মুহাম্মদ রফিকুল ইসলামসহ সিআইডির একটি টিম সোনাইমুড়ী ছাতারপাইয়া এলাকা থেকে পলাতক মোস্তফা চৌধুরকে আটক করে। এর আগে সোনাইমুড়ি থানা পুলিশ ও পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) এর কাছে মামলাটির দায়িত্ব থাকলেও তারা আসামিকে গ্রেফতার করতে ব্যর্থ হয়।

সিআইডি নোয়াখালী জেলা তদন্তকারী কর্মকর্তা পুঃপরিঃ মুহাম্মদ রফিকুল ইসলাম বলেন, মামলার ঘটনা সংক্রান্তে আসামিকে জিজ্ঞাসাবাদসহ অন্যান্য আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

উল্লেখ্য, ২০১৮ সালের ২৩ অক্টোবর সকাল সাড়ে ১০টায় উপজেলার কাশিপুর মধ্যপাড়া গ্রামে সাদ্দামকে তার নিজ বাড়ির উঠানে গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয়, তার নিজের পিতা মোস্তফা চৌধূরীর নির্দেশে বড় বোন কুলসুম আক্তার ধনি ও মা রায়হানা বেগম। এসময় তার আত্মচিৎকার শুনে এলাকাবাসী এসে তাকে উদ্ধার, ঢাকা মেডিকেল কলেজ বার্ণ ইউনিটে ভর্তি করে। তার শরীরের ৮০ ভাগ পুড়ে যাওয়ায় ২০ দিন সে মৃত্যুর সাথে পাঞ্চা লড়ে চিকিৎসাধীন অবস্থায় (১৩ নভেম্বও ২০১৮) ঢাকার একটি হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে মৃত্যুবরণ করে। এঘটনায় পরদিন তার স্ত্রী আসমা আক্তার বাদী হয়ে সোনাইমুড়ী থানায় ৩ জনকে আসামি করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।


এ জাতীয় আরো সংবাদ