শিরোনাম :
বেগমগঞ্জ উপজেলায় প্রানীসম্পদ প্রদর্শনী অনুষ্ঠিত বাগেরহাটের মোল্লাহাটে খুন হওয়া মৃত ইউসুফ শেখের খুনিদের গ্রেপ্তার ও ফাঁসির দাবিতে মানববন্ধন নোয়াখালীর কাদির হানিফ ইউনিয়নে সন্ত্রাস ও মাদকমুক্ত করার ঘোষনা দিলেন জাহাঙ্গীর আলম বাগেরহাটের মোল্লাহাটে জবাই হলো বৃদ্ধ ইউসুফ শেখ রাতের বেলা শত্রুপক্ষের হাতে সেনবাগে কালিকাপুর ছাত্র কল্যান সংস্থার উদ্দ্যোগে ঈদ পূর্ণমিলনী ও আলোচনা সভা ঘাতকদের নির্মম আঘাতে নিহত বায়োবৃদ্ধ আসাদ শেখের খুনিদের দাবিতে নিহতের পরিবার ও গ্রামবাসীর মানববন্ধন সেনবাগে কাবিলপুর একতা সমাজ সংঘের উদ্দ্যোগে ইফতার পার্টি ও ঈদ বস্র উপহার বিতরণ সেনবাগে সৈয়দ হারুন ফাউন্ডেশনের পক্ষ হতে ৪০০ পরিবারকে ঈদ উপহার সামগ্রী বিতরণ সেনবাগে সেলিম উদ্দিন কাজল এর উদ্দ্যোগে দেশবাসীর জন্য দোয়াও মেজবানী অনুষ্ঠিত সেনবাগে কাবিলমিয়া ফাউন্ডেশনের উদ্দ্যোগে ঈদ উপহার সামগ্রী বিতরণ
নোটিশ :
Wellcome to our website...

ঘাতকদের নির্মম আঘাতে নিহত বায়োবৃদ্ধ আসাদ শেখের খুনিদের দাবিতে নিহতের পরিবার ও গ্রামবাসীর মানববন্ধন

প্রথমসংবাদ ডেক্স : / ৪৩ বার
আপডেটের সময় : শনিবার, ১৫ মে, ২০২১

মাসুদ মীর, জেলা প্রতিনিধি বাগেরহাটঃ গত ১ এপ্রিল ২০২১ ইং তারিখে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন ও পূর্ব শত্রুতার জের ধরে পরিকল্পিতভাবে বর্তমান মেম্বার মামুন শেখ এর নির্বাচনী প্রচারণার সময় অতর্কিতভাবে তার প্রতিপক্ষ প্রার্থী কিবরিয়া শরীফের পক্ষে এলাকার চিহ্নিত দাঙ্গাবাজ ২ নং ওয়ার্ড বিএনপি’র সভাপতি আবুল মোল্লা, মেকাইল চৌধুরী, সবেদ মোল্লা, তানজিল মুন্সি, সালাউদ্দিন চৌধুরীর গং এর নেতৃত্বে কয়েকশত লোক রামদা, ছ্যান, কুড়াল, ঢাল, সরকি, হাতুড়ি ও লোহার রডসহ মারাত্মক অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে মামুন শেখের ও তার লোকের ওপর ঝাঁপিয়ে পড়ে।

এ হামলায় নিরীহ বয়োবৃদ্ধ আসাদ শেখ (৭০) কে নির্মমভাবে কুপিয়ে হত্যা করে। এই হামলায় মামুন শেখ নিজেও গুরুতর আহত হয়। এছাড়া মামুন শেখের চাচাতো ভাই আরিফুলসহ আরো ১০ জনকে হামলাকারীরা কুপিয়ে ও পিটিয়ে গুরুতর আহত করে এবং তাদের লোকজনের বাড়িঘর ভাঙচুর করে।

হামলাকারীরা নারী/শিশুকে ও রেহাই দেয়নি। এ ঘটনায় গত ০৩/০৪/২০২১ ইং তারিখে নিহত আসাদ শেখ এর কন্যা মমতাজ বেগম (৪২) বাদী হয়ে ৮৭ জনের নাম উল্লেখ করে এবং অজ্ঞাত আরও ১০/১২ জনকে আসামি করে মোল্লাহাট থানায় একটি মামলা দায়ের করে,
যাহার নং – ০৩, ধারা ১৪৩, ৪৪৭, ৪৪৮, ৪২৭, ৩২০, ৩২৪, ৩২৫, ৩২৬, ৩০৭, ৩০২, ৩৪ ও ১১৪।

উক্ত মামলায় একজন আসামী গ্রেপ্তার হলেও বাকিরা পুলিশের চোখ ফাঁকি দিয়ে ধরা ছোঁয়ার বাইরে রয়েছে। তারা বিভিন্ন সময় নির্মম এ হত্যাকান্ডকে আড়াল ও গুরুত্বহীন করতে সাজানো কিছু ঘর ভাঙ্গা, ছবি এডিট করে বারবার মিডিয়ার সামনে তুলে ধরছে এবং হয়রানি মূলক মিথ্যা মামলাসহ নানা প্রকার অসত্য ঘটনাকে সামনে এনে আইন প্রয়োগকারী সংস্থাকে প্রভাবিত করার চেষ্টা করছে। আসামিরা দুর্দান্ত প্রতাপশালী।

তারা এ ঘটনার পূর্বে চুনখোলা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শরীফ মাহাতাব উদ্দিন এর দোকান ঘর ও বসতবাড়ি ভাংচুর করে। এছাড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের শ্রমবিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট জুলফিকার আলীর বসতবাড়ি, সংখ্যালঘু ভবেন রায় ও সঞ্জিত বিশ্বাস জমি দখলসহ তাদের বাড়ি ভাঙচুর করে।

আসামিদের অতিসত্বর গ্রেফতার করে আইনের আওতায় না আনলে আরো বড় ধরনের ক্ষতির আশঙ্কা রয়েছে এবং মামুন শেখ ও তার পরিবার নিরাপত্তাহীনতা বোধ করছে। অমতাবস্থায় সংশ্লিষ্ট আইন প্রয়োগকারী সংস্থার দৃষ্টি আকর্ষণ করছে যাতে এলাকাবাসী শান্তি ও পরিবারের নিরাপত্তা বিবেচনায় আসামিদের দ্রুত গ্রেফতারপূর্বক আইনের আওতায় আনে।

মানববন্ধনে অন্যদের মধ্যে অংশগ্রহণ করে নিহতের কন্যা মমতাজ বেগম, পুত্র আরিফুল শেখ, বীর মুক্তিযোদ্ধা বাদশা মিয়া, লাজিদা খানম, চুনখোলা ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান হাজী আলী আহমদ, মোহাম্মদ ওহাব আলী , উপজেলা আওয়ামী লীগ সদস্য হীরা বেগম টুকটুকি, পলাশ ফকির, চুনখোলা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সম্পাদক শরিফ মাহাত্তাব উদ্দিন, চুনখোলা ইউনিয়ন যুবলীগ সভাপতি মোঃ রমজান শরীফ ও মহিলা সদস্য চম্পা বেগম প্রমুখ।


এ জাতীয় আরো সংবাদ